দেখুন কী লগার এর কাজ কী এবং এটা থেকে সর্তক থাকার বিস্তারিত তথ্য।

প্রিয় ,
আসসালামু আলাইকুম। আশা করি ভালো আছেন। কারণ TrickRed.com এর সাথে থাকলে সবাই ভালো থাকে। আর আপনাদের দোয়ায় আমি ও ভালো আছি। তাই আজ নিয়ে এলাম আপনাদের জন্য আরেক টা নতুন টিপস। আর কথা বাড়াবো না কাজের কথায় আসি।

বর্তমান প্রযুক্তির উন্নয়ন এর কথা ভেবে আশা করা যাচ্ছে যে সকলের সোশ্যাল নেটওয়ার্ক এ একাউন্ট রয়েছে বা ইমেল সার্ভিস ওয়েবসাইট এ একাউন্ট রয়েছে বা ট্রিকরেড এ একাউন্ট রয়েছে আপনার, আপনি অবশ্যই চাইবেন না আপনার একাউন্ট এর পাসওয়ার্ড অন্য কেউ জানুক বা আপনার একাউন্ট ব্যবহার করুক। কারণ আমাদের একাউন্ট এ আমাদের অনেক রকম গুরুত্বপূর্ণ ডাটাবেজ থাকেই যা কারো সাথে শেয়ারিং এ যাওয়া সম্ভব হয়ে উঠে না।



মনে করুন আপনি সাইবার ক্যাফে প্রবেশ করেছেন এবং আপনার সোশ্যাল নেটওয়ার্ক একাউন্ট, ইমেল একাউন্ট বা ট্রিকরেড একাউন্ট লগইন করেছেন এই অবস্থায় যদি সেই কম্পিউটারে কী – লগার লাগানো থাকে তবে আপনার সকল তথ্য চুরি হয়ে যেতে পারে। আর এটি একদমই সহজ বিষয়, আবার এমনটাও হতে পারে হয়তো কেউ আপনার পাসওয়ার্ড চুরি করবে বলে নির্ধারণ করলো এবং সে জানে যে আপনি হয়তো সাইবার ক্যাফেতে যান, তো ঐ ব্যক্তি আগে গিয়ে কম্পিউটারে কী-লগার লাগিয়ে আসতে পারে।

আসলে এই কী – লগার (Keylogger) নিয়ে এতো কথা বললাম কিন্তু বলাই হলো না যে এটা কী কাজে ব্যবহার হয় বা এটা কী, কী – লগার একটি হার্ডওয়্যার হতে পারে আবার একটি সফটওয়্যারও হতে পারে। যদি হার্ডওয়্যারের কথা বলি তবে এটি দেখতে হতে পারে একটি পেনড্রাইভের মতো। এবং যেকোনো ল্যাপটপ বা ডেস্কটপ এ সহজে লাগানো যেতে পারে। আর যদি সফটওয়্যার এর কথা বলি তবে এটি যেকোনো একটি সাধারন সফটওয়্যার এর মতো দেখতে হতে পারে। আপনি আপনার কম্পিউটারে সেটি ম্যাক, উইন্ডোজ বা অন্য কোনো এস এ ইন্সটল করতে পারবেন।

এখন প্রশ্ন হলো এই কী – লগার (Keylogger) কী রকম কাজ করে থাকে, আসলে এইটা হার্ডওয়্যার হোক বা সফটওয়্যার হোক যদি কোথায়ও ইন্সটল থাকে তাহলে এটা তার মতো কাজ করতে থাকবে, মনে করুন আপনি সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করে কোনো বিষয় জানার জন্য টাইপ করলেন এবং সার্চ করলেন অথবা আপনি আপনার সোশ্যাল নেটওয়ার্ক একাউন্ট, ইমেল একাউন্ট, ট্রিকরেড একাউন্ট লগইন করলেন এবং লগইন করার সময় ইউজার এবং পাসওয়ার্ড টাইপ করলেন। তখন এই প্রোগ্রাম এর কাজ হলো আপনার টাইপ করা সকল কিছু সংরক্ষণ করে রাখা এবং এটার লগ কেউ দেখতে গেলে তখন ডিসপ্লে করা। এটা শুধু টাইপিং তথ্য শেয়ার করে না কিছু সময় পর পর স্ক্রিনশট ও তুলে রাখে এবং হতে পারে স্ক্রিন রেকর্ড করে রাখে।

তবে এই কী – লগার (Keylogger) সিস্টেম – কে অনেক ভালো কাজে ব্যবহার হয়ে থাকে, মনে করুন আপনার একটা কোম্পানি রয়েছে, অনেকেই কাজ করে আপনার কোম্পানির সাথে। আপনি চাইলেই তাদের সকল কিছুর উপর নজর রাখতে পারেন যে কোম্পানির কোনো ডাটাবেজ সেল করে দিচ্ছে কী বা কেনো খারাপ কাজের সাথে যুক্ত হচ্ছে বা হয়েছে কী ইত্যাদি এই রকম বিষয় জানার জন্য এই কী – লগার (Keylogger) বেশ কাজের।

কী – লগার (Keylogger) সিস্টেম অনেক খারাপ কাজেও ব্যবহার হয়ে থাকে, যারা নতুন হ্যাকিং শিখে বা শিখতে ইচ্ছুক তারা এটা ব্যবহার করে আর এই কী – লগার (Keylogger) হ্যাকিং সিস্টেম খুবই নিচুস্তর এর হ্যাকিং হয়ে থাকে। আবার এই সিস্টেম ফলো করে অনেক পরিবারও তাদের কম্পিউটার এ এই প্রোগ্রাম রান করিয়ে রাখে অন্য মেম্বার্স এর সকল কিছু নজরের জন্য আপনি এই বিষয়টা সাদা অথবা কালো দুইভাবেই নিতে পারেন তবে কালো হচ্ছে খারাপ দিকে যাই, আমরা অবশ্যই প্রযুক্তির সকল সিস্টেম ভালো কাজে ব্যবহার করবো এতে করে আমাদের আরও নতুন সুবিধা তৈরি হতে পারে। আর অন্যের অজান্তে তার একাউন্ট এর সকল তথ্য হ্যাকিং করা সম্পন্ন বেআইনি এটা সাইবার ক্রাইম এর ভেতরে পড়ে অতএব আপনারা এটা অবশ্যই ত্যাগ করবেন সব সময় ভালো কাজে ব্যবহার করবেন সকল সিস্টেম।

আপনি হয়তো ভাবছেন এটা থেকে রক্ষা পাওয়ার সিস্টেম কী বা অনেকেই ভেবে নিছেন যে তাহলে ভার্চুয়াল কী – বোর্ড ব্যবহার করলে এইসকল সমস্যা হতে নিরাপদ, কিন্তু ভূল ভার্চুয়াল কী – বোর্ড ব্যবহার করে তেমন কেনো সুবিধা হচ্ছে না আপনার কারণ আমি অলরেডি বলেছি এই কী – লগার শুধু আপনার টাইপিং তথ্য সংগ্রহ করে না কিছু সময় পর পর স্ক্রিনশট তুলে রাখে এবং স্ক্রিন রেকর্ডও অন থাকে অনেক সময়।

এই সমস্যা এড়াতে আপনার কম্পিউটার থেকে Ctrl+Alt+Delete চাপুন। এতে আপনি দেখতে পাবেন যে কম্পিউটারটিতে কী কী প্রোগ্রাম চালু রয়েছে। যদি কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত প্রোগ্রাম দেখতে পান বা কোনো স্ক্রিন রেকর্ডার দেখতে পান তবে তা সেখান থেকে অফ করতে পারেন। তবে আমি সিকিউরিটি এর কথা ভেবে আপনাদের অবশ্যই বলবো যে কোনো পাবলিক কম্পিউটার ব্যবহার করবেন না, আর যদিও করেন কখনো নিজের গুরুত্বপূর্ণ একাউন্ট গুলো – তে লগইন করবেন না তবে আমি উচ্চতর সর্তকতার কথা ভেবে বলবো পাবলিক কম্পিউটার ব্যবহার করার প্রয়োজন নাই।

বি.দ্রঃ এই কনটেন্ট সম্পূর্ণ শিক্ষার উদ্দেশ্যে। কোনো রূপ নীতি বিরুদ্ধ কাজের ক্ষেত্রে আমি বা ট্রিকরেড দায়ী থাকবো না।

তাহলে ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন TrickRed.com এর সাথে থাকুন। আর এ রকম নিত্যনতুন টিপস পেতে আমাদের সাথেই থাকুন, ধন্যবাদ।

Leave a Reply