দেওবন্দ মাদ্রাসার একটি শিক্ষনীয় গল্প “অশ্চার্য চিকিৎসা”।



[color=blue] অশ্চার্য চিকিৎসা [/color]

[b][color=green] সন্দেহ পোষন করা একটি কঠিন রোগ বটে।নামাজে দারিয়ে সন্দেহ হয় সম্ভবত অযু ভেংগে গেছে,তিন রাকাত পরলাম না চার রাকাত ইত্যাদি সন্দেহ মানুষকে কাজে অগ্রসর হতে দেয় না।

দেওবন্দ মাদ্রাসার দাওরা পাশ এক ছাত্রের একবার সন্দেহ হলো তার মাথা নাই।
এ কথা গোটা মাদ্রাসায় ছড়িয়ে গেল।

বিষয়টি মাদ্রাসার বিশিষ্ট শিক্ষক হযরত মাওলানা ইয়াকুব সাহেব (রহ.) এর কানে আসলো।
তিনি ছুটে গেলেন ছাত্রটির নিকট।জিগ্গাসা করলেন,তোমার মাথা নাই?

আরয করলো,জী না।

হুজুর জুতা খুলে ছাত্রটির মাথায় মারতে লাগলেন।

ছাত্রটি চিৎকার করতে লাগলো,হুজুর মরে গেলাম,মরে গেলাম – লাগছে,খুব লাগছে।

হজুর জিগ্গাসা করলেন,কথায় লাগছে?

ছাত্রটি বললো মাথায় লাগছে।

হুজুর বললেন,মাথা তো নাই।ব্যথা লাগছে কেমন করে?

ছাত্রটি বললো,মাথা আছে হুজুর,মাথা আছে।

হজুর বললেন,আর কোনদিন বলবা মাথা নাই?

ছাত্রটি বললো,না হুজুর না।

তখন তিনি ছাত্রটিকে ছেড়ে দিলেন।

কাজেই সন্দেহকে গুরুত্ব দিতে নাই।সবকিছু ঠিক আছে মনে করে কাজ করে যেতে হবে।
অবশিষ্ট আল্লাহ ক্ষমা করেনেওলা।[/color][/b]

[color=red]আল-এফাযাতুল য়্যাওমিয়্যাহ ;
খণ্ড ১,পৃষ্ঠা ২৭৪।[/color]

Leave a Comment

Advertisment ad adsense adlogger